বুধবার, ১২ জুন ২০২৪, ০৮:৪৫ অপরাহ্ন

অভিমানে বৃক্ষ জাদুঘর

  • প্রকাশিত : শুক্রবার, ১৯ মে, ২০২৩

বেরোবি প্রতিনিধিঃ

মোঃ আল-আমিন 

বৃক্ষ আছে বলেই পৃথিবী এতো সুন্দর।
বৃক্ষ আছে বলেই তো ফুল ফোটে,ফল হয়,ছায়া দেয়। গাছের ডালে পাখি গায় গান। শোনে জুড়ায় অশান্ত প্রাণ।

বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় কে বলা হয়ে থাকে বৃক্ষ জাদুঘর। ফুল,ফল,ঔষধী সহ বিভিন্ন ধরনের গান গাছালিতে জুড়ে থাকে বেরোবির ক্যাম্পাস। শত শত প্রজাতির বৃক্ষ যদি একসাথে কেউ দেখতে চাই অবশ্যই তাকে আসতে হবে রংপুরের, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় এর ক্যাম্পাসে

শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত বাহারি গাছপালা যে কারো নজর কাড়তে সক্ষম। ফুলগাছ, ফলগাছ, ঔষধিগাছ, কাঠগাছসহ সব ধরনের গাছের একটি বৃক্ষ জাদুঘরে পরিণত হয়েছে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ৭৫ একরের ক্যাম্পাস। ক্যাম্পাসের ভিতরে খেলার মাঠের পাশে, মসজিদের সামনে, ক্যাফেটেরিয়ার সামনে, লাইব্রেরির সামনে, একাডেমিক ভবনগুলোর সামনে অথবা প্রশাসনিক ভবনসহ যে কোনো জায়গায় দাঁড়ানো হোক না কেন মুহূর্তেই সেখানে একটা নির্মল অনুভূতি ছড়িয়ে পড়ে যেন। প্রত্যেক ভবনের সামনে নিয়মিত দূরত্বে লাগানো হয়েছে ফুলের গাছ। বছরের ১২ মাসেই ফোটে কোনো না কোনো ফুল। চারটি একাডেমিক ভবনের সামনে পুরোটা জুড়ে নানা রকম বৃক্ষের সমারোহ। চড়ুই, ঘুঘুসহ নাম না জানা অসংখ্য পাখি খেয়ালি ওড়াউড়ি করে এপাশ থেকে ওপাশ। রংপুর শহরের যে কোনো স্থানের চাইতে ক্যাম্পাসের এই দৃশ্য অত্যন্ত মনোমুগ্ধকর।

কিন্তু, এখন বড়ই অভিমানে বৃক্ষ জাদুঘর, ভেঙ্গে পড়েছে অসংখ্যা বৃক্ষ, প্রচন্ড ঝড়, দমকা বাতাসে আজ যেনো বৃক্ষ জাদুঘর এর প্রচন্ড অভিমান,আজ যেনো সে সাজতে ভুলে গেছে, জারুল ফুল আর, শিউলি বকুল ফুলে সাজেনি বৃক্ষ জাদুঘর। ফুলের সৌরভ গুলো যেনো নেই আর, অভিমান করে আর দেয়নি মেলে তার কৃষ্ণচূড়ার লাল।

বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে সবুজের সমারোহ আর বিরল প্রজাতির বিভিন্ন গাছপালা আর পাখি দেখতে বিভিন্ন এলাকা থেকে পরিবারের সদস্য কিংবা একাকি অনেকে আসেন সবুজে ঘেরা ক্যাম্পাস দেখতে। তারা মোহিত হন।

কিন্তু বৃক্ষ জাদুকরের অভিমানে আজ সবকিছু যেন শূন্য শূন্য মনে হচ্ছে। নেই কোন পাখির গান, নেই কোন রঙিন সাজ। তবে খুব দ্রুত শেষ হবে তার অভিমান।

 

সংবাদটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সম্পর্কিত সংবাদ
© ২০২৪ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | রংপুর নিউজ ৩৬৫
ডিজাইন ও কারিগরী সহায়তায় আতিক