বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ০৬:৪৪ পূর্বাহ্ন

স্কোপালোমিন, আপনাকে একমুহুর্তেই নিঃস্ব করতে সক্ষম

  • প্রকাশিত : শনিবার, ২৮ জানুয়ারি, ২০২৩
ভয়ংকর মাদক ‘শয়তানের নিঃশ্বাস’, যা আপনাকে মুহূর্তেই করে দিতে পারে নিঃস্ব। আপনি স্বেচ্ছায় আপনার সম্পদ তুলে দিতে পারেন প্রতারকের হাতে। আপনি তাই করবেন যা আপনাকে.....

 

রিপোর্টার

তোফায়েল আহমেদ 

ভয়ংকর মাদক ‘শয়তানের নিঃশ্বাস’, যা আপনাকে মুহূর্তেই করে দিতে পারে নিঃস্ব। আপনি স্বেচ্ছায় আপনার সম্পদ তুলে দিতে পারেন প্রতারকের হাতে। আপনি তাই করবেন যা আপনাকে করতে বলা হবে। অবাক লাগলেও ঠিক এমনটাই করা সম্ভব এই মাদকের মাধ্যমে।

মারাত্মক এই মাদক হলো স্কোপোলামিন। অপরাধ জগতে যার পরিচিত ‘ডেভিলস ব্রেথ’ বা ‘শয়তানের শ্বাস’ নামে। এই মাদক অতি দ্রুত সেন্ট্রাল নার্ভাস সিস্টেমকে নষ্ট করে দেয় এবং এটি খুবই বিষাক্ত। এই মাদক মস্তিস্কের সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষমতা নষ্ট করে দেয়। অন্যের দেয়া আদেশকে যান্ত্রিকভাবে অনুসরণ করতে বাধ্য করা হয় স্বেচ্ছায়। তারা নিজে কিছু চিন্তা করতে পারেন না শুধু সামনের লোক যা বলবে তাই অনুসরণ রোবটের মত।

ভয়ংকর তথ্য হলো পাশ্চাত্যের এই মাদক এখন বাংলাদেশের কিছু সংঘবদ্ধ অপরাধী চক্রের হাতে। তাদের শিকার হয়ে স্বেচ্ছায় নিজেদের মূল্যবান মালামালসহ টাকা পয়সা হারাতে হচ্ছে সাধারণ মানুষকে। জয়পুরহাটের মতো মফস্বল জেলা শহরেও এদের চক্রটি কার্যক্রম দেখতে পাওয়ায় খুবই চিন্তিত এই এলাকার সাধারণ মানুষ।

জয়পুরহাটের নতুন হাটের গরু ব্যবসায়ী আব্দুর রহীম উদ্দীনকে খাবার চায়ের সাথে স্কোপোলামিন পাউডার মিশিয়ে এবং সুকৌশলে তাদের কাছে থাকা কাগজে মোড়ানো নেশাদ্রব্য নাকের কাছে নিয়ে শুকিয়ে তাকে স্মৃতিভ্রম করেন। এরপর তাদের কথামতো তিনি নিজেই প্রতারক চক্রটির হাতে গরু বিক্রি করা টাকা তুলে দেন। এসব নিয়ে দ্রুতই  সটকে পরে প্রতারকরা। গরু ব্যবসায়ী আব্দুর রহীম উদ্দীন বুঝতেই পারেননি তিনি নিজের হাতে স্বেচ্ছায় ওদের হাতে কেনো তুলে দিলেন তার গরু বিক্রি করা টাকা।

ভুক্তভোগী ও জয়পুরহাট শহরের সাধারণ মানুষ বলছেন, তারা সম্প্রতি এমন বেশ কিছু ঘটনার কথা জানতে পেরেছেন। একারণে তারা বেশ ভীত ও শংকিত অবস্থায় রয়েছে। প্রশাসনের কাছে তাদের উদ্বেগ প্রকাশ করে তারা এর প্রতিকার চায়।

অপরাধ বিশ্লেষকদের মত অনুযায়ী, মূলত প্রতারকার স্কোপালামিন নামে ভয়ংকর মাদক ব্যবহার করে। শয়তানের শ্বাস বা ডেভিলস ব্রেথ হিসেবে পরিচিত পাওয়া এই মাদক মস্তিস্কের সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষমতা নষ্ট করে দেয়। অন্যের দেয়া আদেশকে যান্ত্রিকভাবে অনুসরণ করতে বাধ্য করা হয় স্বেচ্ছায়। তারা নিজে কিছু চিন্তা করতে পারেন না শুধু সামনের লোক যা বলবে তাই অনুসরণ রোবটের মত। ফলে দুর্বৃত্তরা লোকজনকে সর্বস্বান্ত করতে মোক্ষক অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করছে এটি।

র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন বলেন, “এ ধরনের কিছু অভিযোগ আমরা পেয়েছি। তবে সেগুলো সুনির্দিষ্টভাবে আসেনি। আমাদের ধারণা, এগুলোর ক্ষেত্রে ডিওবি নামে অপর একটি মাদকদ্রব্য প্রয়োগ করা হয়েছে। এই ডিওবিও অনেকটাই স্কোপালামিনের মতোই কাজ করে। তবে এটি ভুক্তভোগীর শরীরে প্রবেশ করাতে হয়। তবে বিষয়টি আমরা গুরুত্বের সঙ্গে খতিয়ে দেখছি।”

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের ঢাকা মেট্রো উত্তর (ডিএনসি) উপপরিচালক রাশেদুজ্জামান বলেন, ‘আসলে আমাদের কাছে কিছু তথ্য এসেছে স্কোপালোমিনের বিষয়ে। আমরা স্কোপালোমিনের বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে দেখছি। তবে ইতোমধ্যে র‌্যাব ডিওবি নামের মাদক উদ্ধার করেছে। এগুলো শরীরে পুশ করতে হয় কিংবা খাবারের মাধ্যমে প্রবেশ করাতে হয়। এর ফাঁদে পরে গেলে ভুক্তভোগীর কিছুই করার থাকে না। তাই ফাঁদে পরার আগেই সাবধান থাকতে হবে।’

এই ভয়ানক চক্রের থেকে নিরাপদ থাকার জন্য তিনি কিছু পরামর্শ দেন। যা মেনে চলা হলে অনেকটাই বাঁচা সম্ভব হবে। তিনি অচেনা ব্যক্তির সঙ্গে হ্যান্ডশেক না করা এবং কারও ঠিকানা বা প্রেসক্রিপশন না দেখে দেওয়ার পরামর্শ দেন।

জয়পুরহাট  পুলিশ প্রশাসন জানিয়েছেন, তারা সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে অপরাধীদের চিহ্নিত করতে কাজ করছেন এবং গরুর বাজারে কেনা-বেচা চলাকালীন কোন দোকানপাট খোলা যাবেনা।

সংবাদটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সম্পর্কিত সংবাদ
© ২০২৪ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | রংপুর নিউজ ৩৬৫
ডিজাইন ও কারিগরী সহায়তায় আতিক